আবারও বেপরোয়া সেই ফয়েজ ॥ ব্যবসায়ীকে মারধর, প্রতিবাদে মানববন্ধন

51

 

নারায়ণগঞ্জের চাষাড়া থেকে মুন্সিগঞ্জের মুক্তারপুর পর্যন্ত চলাচলকারী লেগুনা গাড়ি মালিকদের সংগঠন বুড়িগঙ্গা ট্রান্সপোর্ট ও সিটি সার্ভিসের সাধারণ সম্পাদক বোগদাদ মিয়ার উপর সন্ত্রাসী হামলা চালানোর অভিযোগ উঠেছে বিতর্কিত যুবলীগ নেতা শাহ ফয়েজ উল্লাহ ফয়েজ ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে। শুক্রবার (২৬ জানুয়ারি) দুপুরে নগরীর চাষাড়ায় খাজা সুপার মার্কেটের সামনে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে দুজনকে আটক করে পুলিশ।

হামলার ঘটনায় ৮ জনের নাম উল্লেখ করাসহ অজ্ঞাতনামা ৫/৭জনের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং- ৩১, তাং-২৭/০১/২০২৪। আসামীরা হলেন, জামতলা এলাকার শাহজাহান মিয়ার ছেলে বিতর্কিত যুবলীগ নেতা শাহ ফয়েজ উল্লাহ ফয়েজ (৫২), অপু মুন্সি ওরফে মিস্ত্রি (৩০), হিমেল (২৬), আবুল কাশেম শেখ (৪৫), বিজয় চন্দ্র দাস (১৯), জাকির (৩০), মোস্তফা ওরফে সিলা মোল্লফা (৩২) ও কাজল মিস্ত্রি (৪৫)।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, বুড়িগঙ্গা টান্সপোর্ট পরিবহনের মালিক সমিতির পদ পদবী এবং লাইনের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বোগদাদ মিয়া ও ফয়েজের মাঝে দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ চলছিলো। বিরোধের জের ধরে শুক্রবার (২৬ জানুয়ারি) দুপুরে ফয়েজের নির্দেশে চাষাড়াস্থ খাজা সুপার মার্কেটের সামনে লেগুনা স্ট্যান্ডে বোগদাদ মিয়ার উপর অতর্কিত হামলা চালানো হয়। এসময় ফয়েজের সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্যরা লোহার পাইপ, কাঠের ডাসা ও হকিস্টিক দিয়ে বোগদাদ মিয়াকে এলোপাথারিভাবে আঘাত করে। একইসাথে বোগদাদ মিয়ার পকেটে থাকা নগদ ৩৫ হাজার টাকা ও ৪০ হাজার টাকা মূল্যের ২টি মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয় তারা। এসময় লেগুনা মালিক জুম্মন ও সুমন মল্লিক নামে এক ব্যক্তি বোগদাদ মিয়াকে সন্ত্রাসীদের হাত থেকে বাচাঁতে গেলে তাদেরও মারধর করে সন্ত্রাসীরা। একইসাথে জুম্মন মিয়ার পকেটে থাকা নগদ ২০ হাজার টাকাও ছিনিয়ে নেয় তারা। পরে স্থানীয়রা এসে তাদের উদ্ধার করে খানপুর হাসপাতালে নিয়ে গেলে গুরুতর আহত বোগদাদ মিয়াকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং অপর দুজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

একইসাথে এই সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে ফয়েজ ও তার বাহিনীর সকল সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে শনিবার (২৭ জানুয়ারি) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছে বুড়িগঙ্গা ট্রান্সপোর্ট ও সিটি সার্ভিসের সকল মালিক ও শ্রমিকবৃন্দ। এসময় ফয়েজ ও তার বাহিনীকে অনতিবিলম্বে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান তারা। মানববন্ধন শেষে নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল করে তারা।